1. coxsbazarekattorbd@gmail.com : Cox's Bazar Ekattor : Cox's Bazar Ekattor
  2. coxsekttornews@gmail.com : Balal Uddin : Balal Uddin
প্লাস্টিক ব্যবহার ও দূষণ বন্ধের দাবিতে কক্সবাজার রেলস্টেশনে মানববন্ধন - Cox's Bazar Ekattor | দৈনিক কক্সবাজার একাত্তর
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:১২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
জাহাজেই ঈদের নামাজ পড়লেন জিম্মি বাংলাদেশি নাবিকরা শাওয়ালের চাঁদ দেখা গেছে, কাল ঈদ সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে সাতক্ষীরায় ২৫ গ্রামে ঈদ উদযাপন পার্বত্য জেলায় অস্থিরতার কারণে ঈদ কেন্দ্রিক পর্যটনের চাপ কক্সবাজারে পেকুয়ায় ৭ করাতকলে প্রশাসনের অভিযান ঈদের পরদিন থেকে সেন্টমার্টিনে পর্যটকবাহী সব জাহাজ বন্ধ ঝিলংজার হাজিপাড়ায় সংঘবদ্ধ চোরের উপদ্রব।। আতংক চরমে কক্সবাজারে আইএমও কর্মকর্তা তুহিনের হামলায় ছাত্রসহ বৃদ্ধা মহিলা আহত! হোটেল থেকে নির্মাতা সোহানুর রহমানের মেয়ের মরদেহ উদ্ধার ‘সন্ত্রাসী ইসরাইলি হামলা বিশ্বের মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দিতে হবে’ -ড. সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী

প্লাস্টিক ব্যবহার ও দূষণ বন্ধের দাবিতে কক্সবাজার রেলস্টেশনে মানববন্ধন

  • আপলোড সময় : বুধবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ৩৮ জন দেখেছেন

স্টাফ রিপোর্টার-আবু সালমান ফারহান:-প্লাস্টিক বর্জ্য বন্ধের লক্ষ্যে স্থানীয় এবং পর্যটকদের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে স্থানীয় বেসরকারি সংগঠন “ইপসা” (সেন্টার ফর ইয়ুথ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট), ইউ.এস. ফরেস্ট সার্ভিস-এর যুব সংগঠন “ইয়ুথ কনজারভেশন নেটওয়ার্ক” (ওয়াই সি এন) এবং স্থানীয় যুব ফোরাম “ইয়ুথ নেট”, ট্যুরিস্ট পুলিশের সহযোগিতায় কক্সবাজারের আইকনিক রেলস্টেশনে একটি মানববন্ধন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) তরুণদের আয়োজিত এই মানববন্ধনে বাংলাদেশে সব ধরণের সিঙ্গেল ইউজ প্লাস্টিক ব্যবহার বন্ধ করার প্রয়োজনের উপর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার অঞ্চলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ কামরুল ইসলাম।

বিশেষ অতিথি ছিলেন ওয়াইসিসি স্পেশালিস্ট (ইউ.এস. ফরেস্ট সার্ভিস /আইপি) মোফাক খারুল তৌফিক।

তারা কক্সবাজারের বর্জ্য ব্যবস্থাপনার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় সহযোগিতামূলক প্রচেষ্টার কথা তুলে ধরেন। একইসাথে দায়িত্বশীল পর্যটনের গুরুত্ব এবং বর্তমান এবং ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য পরিবেশ রক্ষার জন্য সম্মিলিত দায়িত্বের উপর জোর দেন।

বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটন গন্তব্য কক্সবাজার, প্রতি মাসে এখানে কয়েক লক্ষ্য পর্যটক বেড়াতে আসেন, সাথে করে নিয়ে যান কিছু সুখস্মৃতি। কিন্তু দিনে দিনে এই কক্সবাজার হয়ে উঠেছে প্লাস্টিক বর্জ্যের ভাগাড়; শহর থেকে শুরু করে সমুদ্রতীর, লোকালয় এমনকি সদ্য উদ্বোধন হওয়া বাংলাদেশের প্রথম আইকনিক রেল স্টেশনও এই সর্বগ্রাসী প্লাস্টিকে বর্জ্যের হাত থেকে নিস্তার পায়নি! কক্সবাজারের এই চলমান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সংকট এতটাই প্রকট হয়ে উঠেছে যা জীববৈচিত্র্য এবং পরিবেশের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

মানববন্ধনের এক পর্যায়ে বক্তব্য প্রদানকালে ইয়ুথনেট-এর কমিউনিকেশন অ্যান্ড নেটওয়ার্ক ডেভেলপমেন্ট সমন্বয়কারী জিমরান মোহাম্মদ সায়েক বলেন – “আমাদের পরিবেশের ভবিষ্যৎ আমাদের হাতে। প্লাস্টিকের ব্যবহার বন্ধ করে, আমরা কক্সবাজারের সৌন্দর্য রক্ষায় অবদান রাখতে পারি, একই সাথে এই এলাকার প্রাকৃতিক সম্পদকে রক্ষা করতে পারি। আমাদের আজকের প্রতিটি পদক্ষেপ আগামী কক্সবাজার রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ।”

কক্সবাজার শহর এমনিতেই বহুমুখী বর্জ্য সংকটের মধ্যে আছে – পৌর এলাকায় যেখানে সেখানে পড়ে আছে প্লাস্টিক বর্জ্য, কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত এবং বাঁকখালী নদী হয়ে উঠেছে ক্ষতিকর পণ্যের ডাম্পিং গ্রাউন্ড – প্রতিদিন এখানে প্লাস্টিক পণ্য এবং কারখানায় তৈরি বর্জ্য সরাসরি এসে পড়ে, যা শেষে পড়ছে সাগরে!

নুষ্ঠানে বক্তারা প্লাস্টিক ব্যবহার কমাতে সরকারি আইন প্রয়োগের গুরুত্বের ওপর জোর দেন এবং কার্যকর বিকল্পের পক্ষে কথা বলেন। কক্সবাজার আইকনিক রেলওয়ে স্টেশনের সম্প্রতি উদ্বোধনের ফলে এখানে প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটক আসছেন, তৈরি হচ্ছে নতুন আবর্জনার বিস্তার। এই মানব বন্ধনের লক্ষ্য পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখার জন্য এবং একক-ব্যবহারের প্লাস্টিক কমানোর জন্য স্থানীয় এবং দর্শনার্থীদের মধ্যে দায়িত্ববোধ জাগানো।

অনুষ্ঠানের আয়োজকদের একজন ইউসুফ আলী, সমন্বয়কারী, YPSA সেন্টার ফর ইয়ুথ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট বলেন, “কক্সবাজারের সৌন্দর্য আমাদেরকে সবসময় টানে, এই সৌন্দর্যই যেন এর ক্ষতির কারণ না হয়ে দাঁড়ায় সেটা নিশ্চিত করাই আমাদের কর্তব্য। আসুন আমরা এই রত্নটিকে আগামী প্রজন্মের জন্য রক্ষা করার উদ্যোগ হাতে নিই, একক ব্যবহার করা প্লাস্টিককে না বলি”।

আয়োজকদের অন্যতম YCN এর এডভাইজার জনাব মোফাক খারুল ইসলাম তৌফিক বলেন, “দেশের সকল সংকটে সবসময় তরুণরা এগিয়ে এসেছে, এই প্লাস্টিক পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্যের শত্রু, একে মোকাবেলা করার এখনই সময়। আমাদের তরুণরা প্রতিবারের মতো সবাইকে সাথে নিয়ে এই যুদ্ধেও জয়লাভ করবে”।

বর্তমানে কক্সবাজারের এই আইকনিক রেল স্টেশন সাধারন পর্যটক, পরিবহন সংস্থা, শিক্ষার্থী এবং স্থানীয় মানুষদের জন্য আকর্ষণীয় একটি পর্যটন স্থান হিসেবে গড়ে উঠেছে, পর্যটকদের আগমণের ফলে অসাবধানতাবশত জমছে প্লাস্টিক বর্জ্য, এবং এর পরিমাণ দিন দিন বেড়েই চলেছে। বাংলাদেশ ট্যুরিস্ট পুলিশ, ইয়ুথ কনজারভেশন নেটওয়ার্ক (YCN) এবং ইয়ুথনেট দ্বারা সমর্থিত YPSA-এর উদ্যোগ এই সমস্যাটির বিরুদ্ধে লড়াই করতে চায়। আজকের মানব বন্ধনে ১৫০ জনের বেশী তরুণ উপস্থিত ছিলেন। মানব বন্ধন শেষে অংশগ্রহণকারীরা কক্সবাজার রেল স্টেশন প্রাঙ্গন থেকে প্লাস্টিক পরিষ্কার করে।

শেয়ার করতে পারেন খবরটি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো বিভিন্ন খবর দেখুন

Sidebar Ads

ডাঃ কবীর উদ্দিন আহমদ

© All rights reserved © 2015 Dainik Cox's Bazar Ekattor
Theme Customized By MonsuR