শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০২৪, ০১:২১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
সেন্টমার্টিনে মিয়ানমারের দুই সেনা ও ৩১ রোহিঙ্গার অনুপ্রবেশ ২ রোহিঙ্গা যুবকের দেহ তল্লাশিতে মিললো অস্ত্র গুলি টানা বর্ষণে কক্সবাজার শহরে জলাবদ্ধতা, পর্যটকদের দুর্ভোগ কক্সবাজার জেলা পরিষদের ১৪৬ কোটি ৮৩ লাখ টাকা বাজেট ঘোষণা কক্সবাজার আইকনিক রেলস্টেশনে নেটওয়ার্ক কোয়ালিটি টেস্ট কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন পলক আরসার জোন ও কিলিংগ্রুপ কমান্ডারসহ আটক ৩ পটিয়ায় যৌতুক নিয়ে তরুণীর আত্মহত্যা, হবু স্বামী গ্রেফতার  মহেশখালী হত্যা মামলার আসামী মাদ্রাসার সভাপতি হতে দৌঁড়ঝাপ চকরিয়ার চিংড়িজোনে বিপুল অস্ত্র ও কার্তুজসহ বাহিনী প্রধান বেলালসহ গ্রেফতার চার কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের জন্য ফ্রান্সের ১.৫ মিলিয়ন ইউরো অনুদানে ইউএনএইচসিআরের কৃতজ্ঞতা

শত্রুদের জন্য জীবন্ত কাসেমির চেয়ে শহীদ কাসেমি বেশি বিপজ্জনক : খামেনি

অনলাইন ডেস্ক:

ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি বলেছেন, জীবন্ত কাসেমির চেয়ে শহীদ কাসেমি শত্রুদের জন্য বেশি বিপদের কারণ হয়ে উঠেছেন। আজ শনিবার রাজধানী তেহরানে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। তিনি এসময় আইআরজিসি’র কুদস ফোর্সের প্রয়াত কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে বিজয় এবং সহিষ্ণুতার প্রতীক বলে অভিহিত করেছেন।

আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি আরও বলেন, শত্রুরা ভেবেছিল জেনারেল সোলাইমানি, ইরাকি কমান্ডার আবু মাহদি এবং তার সঙ্গীদেরকে হত্যা করলেই সব শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু তাদের রক্তের ধারা শত্রুদের ধারণাকে ভুল প্রমাণ করেছে। আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনারা পালাতে বাধ্য হয়েছে। ইরাক থেকে আমেরিকা তাদের কমব্যাট সেনাদের প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে।

তিনি বলেন, কাসেম সোলাইমানি আশা, আত্মনির্ভরতা, সাহস, ধৈর্য ও বিজয়ের প্রতীক হয়ে দেখা দিয়েছেন। জীবিত সোলাইমানির চেয়ে শহীদ সোলাইমানি শত্রুদের জন্য বেশী বিপদজনক হয়ে উঠেছেন। ইয়েমেনেও প্রতিরোধকামী যোদ্ধারা এগিয়ে যাচ্ছে, সিরিয়ার শত্রুরা ভবিষ্যতের ব্যাপারে আশাহত, এবং উপনিবেশ-বিরোধী প্রতিরোধ ফ্রন্ট মধ্যপ্রাচ্যে বর্তমানে অনেক উন্নত অবস্থায় রয়েছে।

 

ইরানের সর্বোচ্চ এই ধর্মীয় নেতা আরও বলেন, জেনারেল সোলাইমানি অমোচনযোগ্য এবং স্থায়ী বাস্তবতা। সাবেক মার্কিন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বা তার হত্যাকারীদের মতো ইতিহাসের পাতা থেকে মুছে যাবেন না। তার হত্যাকারীদের অবশ্যই এ হত্যাকাণ্ডের দায় শোধ করতে হবে। সূত্র : আনাদোলু এজেন্সি ও আলজাজিরা।