1. coxsbazarekattorbd@gmail.com : Cox's Bazar Ekattor : Cox's Bazar Ekattor
  2. coxsekttornews@gmail.com : Balal Uddin : Balal Uddin
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাস : বান্দরবানে হচ্ছে প্রি-ট্রানজিট ক্যাম্প - Cox's Bazar Ekattor | দৈনিক কক্সবাজার একাত্তর
সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৪:০৪ অপরাহ্ন

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাস : বান্দরবানে হচ্ছে প্রি-ট্রানজিট ক্যাম্প

  • আপলোড সময় : শনিবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ৩৭ জন দেখেছেন

নিউজ ডেস্ক : রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের জন্য বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় নির্মিত হচ্ছে প্রি-ট্রানজিট ক্যাম্প ও রিপিট্রিয়েশন ক্যাম্প। ইতোমধ্যে ক্যাম্পের জন্য ঘুমধুম ইউনিয়নে তিন একর ৫০ শতক জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে এবং ক্যাম্পের নির্মাণ কাজ শুরুর জন্য দরপত্র প্রক্রিয়া শেষ করে কার্যাদেশ প্রদান করা হয়েছে। খুব শিগগিরই নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

জানা গেছে, বাংলাদেশে আগত রোহিঙ্গাদের মায়ানমারে ফেরত পাঠাতে সীমান্তবর্তী বিভিন্ন পয়েন্টে নির্মিত হচ্ছে প্রত্যাবাসন ক্যাম্প। এরই অংশ হিসেবে নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্ত এলাকায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য নির্মিত হচ্ছে প্রি ট্রানজিট ক্যাম্প। যার অপর পাশে মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মংডু রাজ্যের সীমান্তবর্তী এলাকা। যেখান থেকে অনেক রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে আশ্রয় নিয়েছিল। তাই প্রত্যাবাসনের জন্য ঘুমধুম ইউনিয়নের সীমান্ত এলাকায় প্রি ট্রানজিট ক্যাম্প তৈরি করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর পূর্বে তাদেরকে এসব ক্যাম্পে এনে রাখা হবে।

ঘুমধুম ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আজিজ বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য দুটি প্রি ট্রানজিট ক্যাম্প নির্মাণ করা হচ্ছে এরমধ্যে ৮৯ লাখ ৫০ হাজার ২০৮ টাকা ব্যয়ে ঘুমধুম সীমান্তে একটা দরপত্র দেয়া হয়েছে ২ কোটি ২৪ লাখ ৬৫ হাজার ৪০২ টাকা ব্যয়ে তুমব্রু সীমান্তে একটা দরপত্র দেয়া হয়েছে। কবে থেকে কাজ শুরু হবে সেবিষয়ে কিছু জানি না।

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রোমেন শর্মা বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য ঘুমধুম ইউনিয়নে দুটি প্রি ট্রানজিট ক্যাম্প নির্মাণের জন্য ৩ একর পঞ্চাশ শতক জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে। কাজ কখন শুরু হবে কারা কাজ পেয়েছে সে বিষয়ে জানি না। তবে কার্যাদেশ দেয়ার খবর শুনেছি। আমরা শুধু জায়গা বুঝিয়ে দিয়েছি।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য সীমান্তবর্তী বিভিন্ন জায়গায় প্রি ট্রানজিট ক্যাম্প নির্মাণ করা হচ্ছে। তারমধ্যে ঘুমধুমেও একটি নির্মিত হচ্ছে। জায়গা আমরা পছন্দ করেছি। ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয় নির্মাণের কাজ সম্পন্ন করে আমাদেরকে বুঝিয়ে দিলে পরে আমরা সিদ্ধান্ত নিব কবে থেকে প্রত্যাবাসনের কাজ শুরু হবে।
উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে মায়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেয় প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা।

শেয়ার করতে পারেন খবরটি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো বিভিন্ন খবর দেখুন

Sidebar Ads

© All rights reserved © 2015 Dainik Cox's Bazar Ekattor
Theme Customized By MonsuR
x